মোদীবাবার ‘কেয়ার’ কি ঘুষ নিয়ে বেআইনি কাজে ছাড় দেওয়া?

পান মশলা খেলে লোকে পিক ফেলেন। সে কারণে করোনা সংক্রমণ রুখতে গত ২৩ মার্চ পানমশলা বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে উত্তরপ্রদেশ সরকার। হঠাৎ সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে যোগীবাবার সরকার বলে, তামাক বা নিকোটিন ছাড়া পানমশলা বিক্রি করা যাবে। লখনউয়ের জনৈক সাংবাদিক সঞ্জয় শর্মা এ বিষয়ে এলাহাবাদ হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেন। সেই শুনানি চলাকালীন কেন এই সিদ্ধান্ত সে ব্যাপারে সদুত্তর দিতে পারেনি ইউপি সরকার। তবে তার ইঙ্গিত মিলেছে ধরমপাল সত্যপাল লিমিটেডের আদালতে জমা দেওয়া হলফনামায়।

এই সংস্থা রজনীগন্ধা পানমশলা বানায়, তাদের দাবি এটা মাউথ ফ্রেশনার। তাছাড়া ওই সংস্থা পিএম কেয়ারস ফান্ডে ১০ কোটি টাকা দিয়েছে। এ ছাড়া নয়ডায় হোটেলে চিকিৎসকদের জন্য ঘর বুকিং, গরিবদের খাদ্যসামগ্রী দেওয়া, গুরুদ্বার প্রবন্ধক সমিতির লঙ্গরখানা চালাতে সবমিলিয়ে আরও ১০ কোটি টাকা খরচ করেছে। বিষয়টা জলের মতো পরিষ্কার। কার্যত মোদীবাবাকে ঘুষ দিয়ে ব্যান তোলা! উত্তরপ্রদেশের ফুড সেফটি অ্যান্ড ড্রাগস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের আমলা জানিয়েছেন, সংশ্লিষ্ট শিল্প ও কৃষকদের কথা ভেবেই ব্যান তোলা হয়েছে। ওই কৃষকরা পানমশলা তৈরির উপকরণ চাষ করেন। তাছাড়া ব্যান তোলার নির্দেশ এসেছে ওপরমহল থেকে। পাঠকরা বাকিটা বুঝে নিন!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*