বাঁকুড়াতে সিএএ, এনআরসিবিরোধী প্রতিবাদ মিছিল

কেন্দ্রের নাগরিকত্ব আইন বা সিএএ, এনআরসি, এনপিআরের বিরুদ্ধে প্রথম দিন থেকেই সাধারণ মানুষকে সঙ্গে নিয়ে আন্দোলনে নেমেছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস সভানেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শহর থেকে জেলা দীর্ঘ পথ হেঁটে এই আন্দোলনকে এক সর্বব্যাপী গণ আন্দোলনের রূপ দেন তিনি। তাঁর সেই প্রতিবাদ আন্দোলনে পা মেলাতে দেখাতে যায় অগণিত সাধারণ মানুষকেও। তিনি যেভাবে আন্দোলনের সুর বেঁধে দিয়েছিলেন তাঁর দলের নেতা, কর্মীরাও জেলা, ব্লক স্তরে সেই আন্দোলনকে আরো সংগঠিত ও জোরদার করছেন।

অন্যান্য জেলার মতো জঙ্গলমহল অধ্যুষিত জেলা বাঁকুড়াতেও তৃণমূল কংগ্রেস ও যুব তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্যোগে সিএএ, আনআরসিবিরোধী মিছিল চলছে ধারাবাহিকভাবে। দিদিকে বলো কর্মসূচিতে যেভাবে বাড়ি বাড়ি গিয়ে জনসংযোগ করেছেন মাদার, যুব-সহ শাখা সংগঠনের প্রতিনিধিরা তেমনই কেন্দ্রের জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে মানুষকে সচেতন করতে মিছিল করছেন তারা। সর্বভারতীয় যুব তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে বাঁকুড়ায় এনআরসি, সিএএ, এনপিআরের বিরুদ্ধে পথে নেমে প্রতিবাদ করেন বিষ্ণুপুর জেলা যুব তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি রাজীব ঘোষাল। বিশাল প্রতিবাদ মিছিলে পা মেলান সাধারণ মানুষ। তিনি বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে আমরা জেলাজুড়ে ছোটো, বড়ো মিছিল করছি। গ্রামে-গ্রামে ছোটো ছোটো সভা কিংবা পাড়া বৈঠক করে মানুষকে সচেতন করছি। বলছি, আপনারা বিজেপিকে জিতিয়েছেন, তার বদলে বিজেপি আপনাদের উপহার দিচ্ছে নাগরিকত্ব আইন। মাথা গোঁজার ঠাঁইটুকুও অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে সবার। আর যে মমতাকে আপনারা হারিয়ে দিয়েছেন সেই মমতাই আপনাদের মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দেওয়ার জন্য আমার বাংলা প্রকল্পে বাড়ি করে দিয়েছে। জমির পাট্টা দিয়েছে। জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত প্রকল্প এনেছেন তিনি। জেলাজুড়ে যাতে আরও উন্নয়ন হয় সেই চেষ্টাই করে চলেছেন। আপনারাই বিচার করুন কে আপনাদের পাহারদার।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*